শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩  

শিরোনাম

নিল আর্মস্ট্রংঃ একজন সফল নভোচারীর জীবনগাঁথা

মুহাম্মদ মাঈন উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি    |    ১০:১৩ এএম, ২০২১-০৩-০৯

নিল আর্মস্ট্রংঃ একজন সফল নভোচারীর জীবনগাঁথা

সৃষ্টির আদিকাল থেকেই মানুষ সুবিশাল মহাকাশ ভ্রমণের এক সুপ্ত বাসনা মনের মধ্যে পোষণ করেছে কিন্তু নানাবিধ প্রতিকূলতার কারণে তা সম্ভব হয়ে উঠেনি। অবশেষে কতিপয় মহাকাশচারী তাদের সুনিপুণ দক্ষতায় সফলভাবে চাঁদে অভিযানের মাধ্যমে সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে তোলে। তাদের মধ্যে নিল আর্মস্ট্রং চাঁদের পৃষ্ঠে প্রথম মানুষ হিসেবে পা রেখে মহাকাশবিজ্ঞানের ইতিহাসে অমর নক্ষত্র হয়ে আছেন।

১৯৩০ সালের ৫ই আগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওহিওতে তার জন্ম। ১৬ বছর বয়সে তিনি প্রথম ছাত্রাবস্থায় ফ্লাইট সার্টিফিকেট অর্জন করেন। ১৯৫৫ সালে তিনি অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। চন্দ্রাভিযানের পর তিনি একই বিভাগে স্নাতকোত্তর ডিগ্রিলাভের গৌরব লাভ করেন। তবে প্রাথমিকভাবে তিনি নাসার একজন টেস্ট পাইলট হিসেবে নিযুক্ত হন।

নাসার এমস রিসার্চ সেন্টারে এমস বেল এক্স - ১৪ বিমানের ককপিটে নিল আর্মস্ট্রং

নাসার এমস রিসার্চ সেন্টারে এমস বেল এক্স – ১৪ বিমানের ককপিটে নিল আর্মস্ট্রং; ছবি নাসার সৌজন্যে

তৎকালীন সময়ে নাসা প্রতিনিয়ত মহাকাশে নানাবিধ পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ব্যস্ত সময় পার করছিল। আর্মস্ট্রং তখন নিজেকে যেকোন মিশনে যুক্ত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু তিনি তার কন্যা কারেনের ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করার শোক কিছুতেই কাটিয়ে উঠতে পারছিলেন না। অতঃপর ১৯৬২ সালে তিনি প্রজেক্ট জেমিনি এর জন্য মনোনীত হন। ফলে স্ত্রী জ্যানেট এবং ছেলে রিক ও মার্ককে সঙ্গী করে তিনি হিউস্টনে পাড়ি জমান। পরবর্তীতে বেশ কয়েকবার জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তিনি নাসার বিভিন্ন মিশনে অংশ নেন।

অসংখ্যবার নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে তিনি মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসেন কারণ মহাকাশজয়ের নেশা রীতিমত পেয়ে বসেছিল তাকে। তার এই অকুতোভয় মানসিকতার ফলস্বরূপ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চাঁদে অভিযানের অ্যাপোলো ১১ মিশনের জন্য নাসা তাকে কমান্ডার হিসেবে নির্বাচিত করে। কিন্তু এই অভিযানের বিভিন্ন পদেও তাকে বেশ বাধা-বিপত্তির মুখে পড়তে হয়। চাঁদে অভিযানের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি জানান সেখানে প্রায় ২০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা ছিল, ফলে সেখানে স্বাভাবিক থাকার জন্য তাদের পর্যাপ্ত তাপ প্রতিরোধক পোশাক ও তাপ নিরোধক দ্রব্যের প্রয়োজন ছিল। তবে এরূপ প্রতিকূল আবহাওয়ায় এসবের কার্যকারিতা নিয়ে তিনি বেশ চিন্তিত ছিলেন।

চাঁদের পৃষ্ঠে লুনার মডিউলের ভিতর নিল আর্মস্ট্রং

চাঁদের পৃষ্ঠে লুনার মডিউলের ভিতর নিল আর্মস্ট্রং; ছবি নাসার সৌজন্যে

অবশেষে সব জল্পনা-কল্পনাকে পাশ কাটিয়ে তিনি ১৯৬৯ সালের ২০শে জুলাই চাঁদের মাটিতে পা রাখেন। চাঁদে অভিযানের এই প্রতিকূল যাত্রায়ও নিজের প্রয়াত কন্যাসন্তানকে ভোলেননি তিনি। তাই কন্যা কারেনের স্মৃতিচারণের উদ্দেশ্যে আর্মস্ট্রং তার একটি ব্রেসলেট সাথে করে নিয়ে যান চাঁদে এবং এই চাঁদে অভিযানের স্মারক হিসেবে তা চন্দ্রপৃষ্ঠেই রেখে আসেন।

ব্যক্তিজীবনে নিল আর্মস্ট্রং কিছুটা অন্তর্মুখী স্বভাবের ছিলেন। এরপরও তার জীবনযাপন ও চাঁদে গমনের অভিজ্ঞতা নিয়ে মানুষের আগ্রহের কমতি ছিল না। তাই তার জীবন নিয়ে সিনেমাও কম নির্মিত হয়নি। ২০০৫ সালে আর্মস্ট্রং এর জীবনী ‘ফার্স্ট ম্যান – দ্য লাইফ অফ নিল এ. আর্মস্ট্রং’ প্রকাশ করেন মার্কিন লেখক জেমস আর. হ্যানসেন। এই জীবনীতে আর্মস্ট্রং এর পারিবারিক জীবনের টানাপোড়েন, চাঁদে অভিযানের বিভিন্ন প্রতিকূলতা সবকিছু ফুটে উঠেছে।

এক সাক্ষাৎকারে হ্যানসেন আর্মস্ট্রং এর জীবনের নানাবিধ দিক নিয়ে আলোচনা করেন। তার মতে আর্মস্ট্রং ছিলেন একনিষ্ঠ, নিয়মতান্ত্রিক ও নিজের চাকুরির জন্য নিবেদিতপ্রাণ একজন ব্যক্তি। তার এরূপ বৈশিষ্ট্য তার পারিবারিক জীবনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছিল।

তবে একথা বলার অপেক্ষা রাখেনা যে, অ্যাপোলো ১১ সফলভাবে পরিচালনা করার জন্য তিনিই সবচেয়ে উপযুক্ত ব্যক্তি ছিলেন। একজন বিমান চালক এর অভিজ্ঞতার পাশাপাশি তিনি অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ ডিগ্রিপ্রাপ্তও ছিলেন যা নিঃসন্দেহে তাকে অন্যদের চেয়ে অদ্বিতীয় করে তুলেছিল। আর্মস্ট্রংকে একজন দায়িত্ববান ব্যক্তি হিসেবে অভিহিত করে হ্যানসেন বলেন, আর্মস্ট্রং জানতেন যে তার উপর অত্যন্ত ভরসা করে অ্যাপোলো ১১ এর গুরুদায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। তাই যেকোন মূল্যে তিনি এই মহাকাশযাত্রার উদ্দেশ্যকে সফল করতে উদগ্রীব ছিলেন।

চাঁদের পৃষ্ঠে লুনার মডিউল ঈগল এর কাছে কাজ করছেন নিল আর্মস্ট্রং

চাঁদের পৃষ্ঠে লুনার মডিউল ঈগল এর কাছে কাজ করছেন নিল আর্মস্ট্রং, এই দুর্লভ ছবিটি বাজ অলড্রিন তুলেছেন; ছবি নাসার সৌজন্যে

পরবর্তীতে তার এই জীবনীকে রঙিন পর্দায় তুলে ধরেন অস্কারজয়ী নির্মাতা ডেমিয়েন শ্যাজেল। রায়ান গসলিং নিল আর্মস্ট্রং এর চরিত্রে অভিনয় করে সকলের প্রশংসা অর্জন করেন। দুর্দান্ত ভিজ্যুয়াল ইফেক্টের জন্য ছবিটি অস্কার পুরস্কার লাভ করে।

নিল আর্মস্ট্রং এর ছেলে মার্ক আর্মস্ট্রং এর মতে তার বাবাকে নিয়ে এ যাবৎকালে যত সিনেমা, প্রামাণ্যচিত্র নির্মিত হয়েছে তার মধ্যে ডেমিয়েন শ্যাজেলের পরিচালিত ‘ফার্স্ট ম্যান’ সিনেমাটি সবচেয়ে নির্ভর‍যোগ্য। তাই এ সিনেমাটি নিল আর্মস্ট্রং এর চাঁদে অভিযান নিয়ে আগ্রহীদের জন্য হতে পারে তাদের জ্ঞানের দ্বার উন্মোচনের একটি উপযুক্ত মাধ্যম।

তথ্যসূত্র

রিলেটেড নিউজ

ইসলামের দৃষ্টিতে ব্যাংকে চাকুরী কি হালাল না হারাম

ইসলামের দৃষ্টিতে ব্যাংকে চাকুরী কি হালাল না হারাম

অনুসন্ধান অনলাইন ডেস্ক : সুদ শব্দটি ফারসী বা উর্দু শব্দ থেকে এসেছে। সুদ এর আরবী রিবা। রিবা শব্দের অর্থ হলো আধিক্য, প্রবৃদ্ধ...বিস্তারিত


অভ্রর স্রষ্টা ও একবিংশ শতাব্দীর এক ভাষা সৈনিকের অদম্য গল্প

অভ্রর স্রষ্টা ও একবিংশ শতাব্দীর এক ভাষা সৈনিকের অদম্য গল্প

মুহাম্মদ মাঈন উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসের কোনো এক স্থানে ক্যাম্পাসেরই দুই (জুনিয়র-সিনিয়র) ছাত্রের মাঝে ...বিস্তারিত


৫০ টাকায় ইচ্ছামতো আম-লিচু খাওয়ার সুযোগ মিলছে রাজশাহীতে

৫০ টাকায় ইচ্ছামতো আম-লিচু খাওয়ার সুযোগ মিলছে রাজশাহীতে

মুহাম্মদ মাঈন উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি : রাজশাহীতে কৃষিভিত্তিক পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলার স্বপ্ন নিয়ে কাজ করছেন শিক্ষিত তরুণ উদ্যোক্তা হাস...বিস্তারিত


নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় যৌথবাহিনীর অভিযানে আটক ২ জেএসএস সন্ত্রাসীকে জেল হাজতে প্রেরণ

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় যৌথবাহিনীর অভিযানে আটক ২ জেএসএস সন্ত্রাসীকে জেল হাজতে প্রেরণ

দৈনিক অনুসন্ধান : মোঃ আলমগীর, বিশেষ প্রতিনিধিঃ বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার গহীন পাহাড়ে যৌথবাহিনীর অভিযা...বিস্তারিত


বাংলাদেশি তরুণ উদ্যেক্তা ও প্রতিষ্ঠানের  ব্রান্ডিং নিয়ে কাজ করছে ইকারিগরি

বাংলাদেশি তরুণ উদ্যেক্তা ও প্রতিষ্ঠানের ব্রান্ডিং নিয়ে কাজ করছে ইকারিগরি

অনুসন্ধান অনলাইন ডেস্ক : বর্তমান বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ থেকেও অনেক তরুণ উদ্যেক্তা ও প্রতিষ্ঠান অনলাইনে প্রযুক্...বিস্তারিত


সত্যের প্রতি আজীবন অবিচল এক রাহবারের স্মৃতিকথাঃ ড. আ,ফ,ম খালিদ হোসেন

সত্যের প্রতি আজীবন অবিচল এক রাহবারের স্মৃতিকথাঃ ড. আ,ফ,ম খালিদ হোসেন

দৈনিক অনুসন্ধান : কিছুদিন আগে মাসিক মুঈনুল ইসলামের নির্বাহী সম্পাদক মুহতারম মুনির ভাইয়ের মোবাইল থেকে ফোন করে শায়খু...বিস্তারিত



সর্বপঠিত খবর

বিয়ে করে ৩ মাস সংসার করে পালিয়ে যান সন্দ্বীপের শিপন

বিয়ে করে ৩ মাস সংসার করে পালিয়ে যান সন্দ্বীপের শিপন

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রেম  করে পালিয়ে বিয়ে করেন মোহাম্মদ শিপন ও রিমা সরকার। বিয়ের ৩ মাসের মাথায় স্ত্রী রিমা সরকার কে ...বিস্তারিত


সন্দ্বীপে পুলিশ কর্তৃক অন্তঃস্ত্ত্বা নারী নির্যাতিত, গর্ভের সন্তান মৃত!

সন্দ্বীপে পুলিশ কর্তৃক অন্তঃস্ত্ত্বা নারী নির্যাতিত, গর্ভের সন্তান মৃত!

নিজস্ব প্রতিবেদক : কাউছার মাহমুদ দিদারঃ  চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে  সিভিল পোশাকে আসামী ধরতে গিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় ...বিস্তারিত



সর্বশেষ খবর